দক্ষিণ এশিয়া
‘গোপন’ আলোচনা চলছে, চীন প্রসঙ্গে ভবিষ্যদ্বাণী নয়: দিল্লি
‘গোপন’ আলোচনা চলছে, চীন প্রসঙ্গে ভবিষ্যদ্বাণী নয়: দিল্লি





পালাবদল ডেস্ক
Friday, Oct 16, 2020, 12:39 pm
 @palabadalnet

চীন নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করতে রাজি নন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। ফাইল ছবি

চীন নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করতে রাজি নন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। ফাইল ছবি

নয়া দিল্লি: আলোচনা ও আগ্রাসন দু’টোই কার্যত এক সঙ্গে চালায় চীন। সামরিক ও কূটনৈতিক আলোচনার মধ্যেই যেমন পূর্ব লাদাখে নজিরবিহীন ভাবে গুলি চালিয়েছে চীনা বাহিনী। ফলে বেইজিংকে নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা কঠিন।  ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করও সেই দিকে ইঙ্গিত করে বললেন, ‘‘আলোচনা চলছে। কিন্তু চীনকে নিয়ে আগাম কোননো মন্তব্য করা যাবে না।’’ আলোচনার বিষয়বস্তু ‘গোপনীয়’বলেও মন্তব্য করেছেন ররাষ্ট্রমন্ত্রী।

১৪ জুন গালওয়ান উপত্যকায় সেনা সংঘর্ষের পর সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে আলোচনার পর পূর্ব লাদাখে স্থিতাবস্থা ফেরাতে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) থেকে সেনা সরাতে একমত হয়েছিল নয়া দিল্লি-বেইজিং। সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চলছিল। কিন্তু আলোচনার প্রক্রিয়ার মধ্যেই ৩০ আগস্ট থেকে ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় কয়েক বার গুলি চালিয়েছে চীনা বাহিনী। মস্কোয় ভারত-চীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী স্তরের বৈঠকেও সমঝোতার বার্তা ছিল। তারপরেও লাদাখ নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছে চীন। ভারতও তার জবাব দিয়েছে।

এই পরিস্থতিতে বুধবার সপ্তম দফা সামরিক স্তরে বৈঠক হয়েছে। পরের দিন ব্লুমবার্গ ইন্ডিয়া ইকনমিক ফোরামে বুধবারের বৈঠক নিয়ে মন্তব্যই করতে চাইলেন না জয়শঙ্কর। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীশুধু বলেন, ‘‘আলোচনা চলছে। ওয়ার্ক ইন প্রগ্রেস। আমার প্রথম নীতি হল, যেটা এখনও চলছে, তা নিয়ে আগাম মন্তব্য না করা।’’ তার পরেও এ নিয়ে জোরাজুরি করায় তিনি বলেন, ‘‘নয়া দিল্লি ও বেজিংয়ের মধ্যে এমন কিছু আলোচনা চলছে, যা গোপনীয়। দেখা যাক, এটা কী ভাবে কাজ করে।’’

সীমান্তে আগ্রাসনের পাশাপাশি মাঝে মধ্যেই লাদাখ নিয়ে ভারতের জন্য অস্বস্তিকর বিবৃতি দিচ্ছে বেইজিং। গত বছরের আগস্টে জম্মু-কাশ্মির এবং লাদাখকে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ঘোষণা করে সেই অনুযায়ী সংবিধান সংশোধন করেছে নয়া দিল্লি। সেই পদক্ষেপে গোড়া থেকেই আপত্তি তুলেছে চীন। কয়েক দিন আগে তারা আবার হুঙ্কার ছেড়েছে, ‘‘লাদাখকে বেআইনি ভাবে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ঘোষণা করেছে ভারত।’’ পাল্টা নয়া দিল্লিও জানিয়ে দিয়েছে, ‘‘লাদাখ ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল আছে এবং থাকবে। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে চীনের মতপ্রকাশের কোনো অধিকার নেই।’’

সূতরাং আলোচনায় বোঝাপড়া বা ঐকমত্যে পৌঁছলেই যে চীনের উস্কানিমূলক বিবৃতি বা আগ্রাসন থেমে যাবে, বেইজিংয়ের ওপর তেমন আস্থা ভারতের নেই। এমনকি, দ্বিপাক্ষিক স্তরে আলোচনা প্রক্রিয়ার মধ্যেও যে পরিস্থিতি ফের বিগড়োতে পারে, নয়া দিল্লি তা বিলক্ষণ জানে। গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষের পর জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্ট অজিত ডোভালের সঙ্গে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী বৈঠকে সেনা সরানোর সিদ্ধান্ত হলেও এখনও ৪ মে-র আগের স্থিতাবস্থা ফেরেনি। বারবার ‘চীনের তরফে এমন প্রতিশ্রুতিভঙ্গ’ এবং পারস্পরিক অবিশ্বাসের বাতাবরণের কারণেই জয়শঙ্কর আগাম কোনো মন্তব্য করতে চাননি বলে মত কূটনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। 

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]