সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
 
সারাবাংলা
এসপি হারুনের কান্না
এসপি হারুনের কান্না





ইউএনবি
Thursday, Nov 7, 2019, 9:50 pm
Update: 07.11.2019, 10:39:25 pm
 @palabadalnet

নারায়ণগঞ্জ: চাঁদাবাজি ও ব্যবসায়ীকে তুলে নেয়ার অভিযোগ ওঠা নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদ বিদায় সংবর্ধনায় কথা বলতে গিয়ে কাঁদলেন। তার দাবি, তাকে প্রত্যাহারের বিষয়টি ষড়যন্ত্রমূলক।

বৃহস্পতিবার জেলা পুলিশ লাইনে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘অপরাধীরা যখন ফেঁসে যায়, মামলা হয় অথবা তদবির করে ব্যর্থ হয় তখনই তারা বলে পুলিশ আমার নিকট টাকা চেয়েছে।’

এদিকে, আজ সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, নারায়ণগঞ্জের সাবেক এসপি হারুনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও ব্যবসায়ীকে উঠিয়ে নেয়ার অভিযোগে তাকে দ্রুত সরিয়ে আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত খুব শিগগিরই শুরু হবে।

উল্লেখ্য, পারটেক্স গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা এমএ হাশেমের ছেলে আম্বার গ্রুপের কর্ণধার শওকত আজিজ রাসেল অভিযোগ করেছেন, দাবি করা ৮ কোটি টাকা চাঁদা না দেয়ায় এসপি হারুন ১ নভেম্বর রাতে গুলশানের বাসায় ঢুকে তার স্ত্রী ও ছেলেকে তুলে আনেন এবং ঢাকা ক্লাব থেকে তার ব্যক্তিগত গাড়িটি জব্দ করেন। গুলশান থানা পুলিশ এ বিষয়ে কিছু জানে না।

তবে এসপি হারুন ২ নভেম্বর সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, ১ নভেম্বর রাতে তাকে ঢাকার বাসায় নামিয়ে দিয়ে তার গাড়ি নারায়ণগঞ্জ ফেরার পথে মগবাজার ফ্লাইওভার এলাকায় যানজটে পড়ে। সেখানে চালক জুয়েল মিয়া হর্ন দিলে সামনের গাড়ি থেকে একজন নেমে এসে তার গাড়ির কাঁচে জোরে আঘাত করতে থাকেন। পরে জানালার কাঁচ নামালে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে নিজের পরিচয় দেয় ‘আমি পারটেক্স রাসেল’। তারপর পুলিশের গাড়ি বুঝতে পেরে ছেড়ে দেয়।

বিষয়টি এসপি হারুনকে জানানো হলে তার নির্দেশে রাসেলের পিছু নেয় পুলিশ। পরে রাত পৌনে ৩টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সাইনবোর্ড এলাকা থেকে ওই গাড়ির চালক সুমনকে আটক করা হয়। এ সময় গাড়িতে রাসেলের স্ত্রী ফারাহ রাসেল ও ছেলে আনাব আজিজ থাকলেও রাসেল নিজে গাড়িতে ছিলেন না। পরে গাড়ি থেকে গুলি, বিদেশি মদ ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে সংবর্ধনায় এসপি হারুন আবারও বলেন, ‘আমার সহকর্মীর মাথায় কেউ পিস্তল তাক করবে তা হতে পারে না। তাই সে দিন আমার সহকর্মীর মাথায় পারটেক্স গ্রুপের রাসেল পিস্তল ধরেছিল বলেই আমি ভেবে দেখিনি সে শক্তিশালী নাকি সম্পদশালী।’

পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন গত জাতীয় নির্বাচনের আগে নারায়ণগঞ্জে পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পান। তার মাস তিনেক আগে তাকে গাজীপুর থেকে পুলিশ সদর দপ্তরে বদলি করা হয়েছিল।

হারুন এক সময় ঢাকা মহানগর পুলিশে ছিলেন। তখন বিএনপি নেতা জয়নুল আবদিন ফারুকের উপর হামলার ঘটনায় আলোচিত হন।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে তার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলেছিল বিএনপি।

নারায়ণগঞ্জে ১১ মাসের দায়িত্বে সন্ত্রাসী, মাদক কারবারি, চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে ‘জিহাদ’ ঘোষণা করেন হারুন।

হকার ও অবৈধ দখল উচ্ছেদসহ বেশ কিছু পদক্ষেপে তিনি যেমন প্রশংসিত হন, তেমনি নারায়ণগঞ্জের অনেক প্রভাবশালীর সঙ্গে টক্করে গিয়ে তিনি নতুন নতুন আলোচনার জন্ম দেন।

এই প্রেক্ষাপটে কিছুদিন আগে শহরের বিভিন্ন সড়কে এসপি হারুনের ছবিসহ ব্যানার দেখা যায়, যেখানে তাকে বলিউডি সিনেমার নায়কের সঙ্গে তুলনা করে বলা হয় ‘বাংলার সিংহাম’।

এ সপ্তাহের শুরুতে এক ঘটনায় হঠাৎ করেই এসপি হারুনের বদলির আদেশ আসে। নারায়ণগঞ্জ থেকে সরিয়ে তাকে পাঠানো হয় পুলিশ সদর দপ্তরে।

পারটেক্স গ্রুপের কর্ণধার এম এ হাশেমের ছেলে আমবার গ্রুপের চেয়ারম্যান শওকত আজিজের স্ত্রী ও সন্তানকে গত শুক্রবার ভোররাতে সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে আটকের বিষয়ে শনিবার সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন হারুন। তিনি দাবি করেছিলেন, ওই গাড়ি থেকে ইয়াবা, মদ ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

তবে অভিযোগ আসে, চাঁদা না পেয়ে শওকত আজিজের স্ত্রী-সন্তানকে ঢাকার গুলশানের বাসা থেকে ধরে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে গিয়েছিলেন এসপি হারুন।

ইন্টারনেটে এর একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে রোববার হারুনের বদলির আদেশ আসে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত হবে বলেও ইতোমধ্যে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বদলির আদেশ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলামের কাছে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন হারুন।

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]