রোববার ১৯ জানুয়ারি ২০২০ ৬ মাঘ ১৪২৬
 
রাজনীতি
তারেক ক্ষমা না চাইলে বিএনপি ক্ষমতা পাবে না: কাদের সিদ্দিকী
তারেক ক্ষমা না চাইলে বিএনপি ক্ষমতা পাবে না: কাদের সিদ্দিকী





গাইবান্ধা প্রতিনিধি
Friday, Dec 13, 2019, 1:26 am
Update: 13.12.2019, 1:30:44 am
 @palabadalnet

গাইবান্ধা: কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান হাওয়া ভবনের জন্য ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত দলটি ক্ষমতায় যেতে পারবে না।

বৃহস্পতিবার গাইবান্ধায় এক দলীয় সভায় একথা বলেন কাদের সিদ্দিকী, যিনি গত নির্বাচনেও বিএনপিকে নিয়ে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে সক্রিয় ছিলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, “বিএনপির নেতা যতদিন তারেক জিয়া আছেন এবং যতদিন তারেক হাওয়া ভবনের জন্য মানুষের কাছে দুই হাত তুলে ক্ষমা না চাইবেন ততদিন বাংলাদেশের শাসন ক্ষমতায় বিএনপি যেতে পারবে না। দুই দিন হয় তারা ক্ষমতায় নাই। তাই তারা মনে করছেন বাদশাহ থেকে ফকির হয়ে গেছেন, কিন্তু তারেক জিয়া সংশোধন না হলে এই বাংলাদেশে ধানের শীষ দ্বিতীয় বার জয়ী হবে না।”

“তবে ইলেকশন হলে নৌকা মার্কারও জয়ের সম্ভাবনা কেয়ামত পর্যন্ত নাই,” বলে মন্তব্য করেন ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর দেশ ত্যাগ করে ভারতে চলে যাওয়া এই মুক্তিযোদ্ধা।

এক দশকের বেশি সময় ধরে লন্ডনে বসবাসকারী তারেক রহমান এখন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, সেখান থেকেই স্কাইপেতে দলীয় সভায় যোগ দেন তিনি।এক দশকের বেশি সময় ধরে লন্ডনে বসবাসকারী তারেক রহমান এখন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, সেখান থেকেই স্কাইপেতে দলীয় সভায় যোগ দেন তিনি।

২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে প্রভাবশালী ছিলেন তার বড় ছেলে তারেক। খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয় হাওয়া ভবনে বসে তিনি ‘সব নিয়ন্ত্রণ করতেন’ বলে অভিযোগ রয়েছে।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, “দেশ স্বাধীনের ৪৮ বছর পরেও মুক্তিযুদ্ধের প্রধান অঙ্গীকার প্রকৃত গণতন্ত্র, শোষণহীন, দুর্নীতি ও বৈষম্যমুক্ত এক অসাম্প্রদায়িক সমাজ আজও বাস্তবায়িত হয়নি।”

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ভোটের আগের রাতে ‘ভোট চুরির ব্যবস্থা করে কেয়ামত পর্যন্ত নৌকার জয়ের সম্ভাবনা নিজেই নষ্ট করে দিয়েছেন’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এক সময়ের আওয়ামী লীগ নেতা কাদের সিদ্দিকী আলাদা দল গঠনের পর গত এক দশকে বিএনপির জোটে না ভিড়লেও কাছাকাছিই ছিলেন।

গত ডিসেম্বরে নির্বাচনের আগে বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে আওয়ামী লীগের এক সময়কার আরেক নেতা কামাল হোসেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করার পর ওই জোটে যোগ দেন তিনি।

খেলাপি ঋণের কারণে ওই নির্বাচনে কাদের সিদ্দিকী অংশ নিতে না পারলেও টাঙ্গাইলে তার আসনে প্রার্থী করেন মেয়ে কুঁড়ি সিদ্দিকীকে।

ওই নির্বাচনে ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে ফল প্রত্যাখ্যানের পর বিএনপি ও গণফোরামের সংসদে যোগদানে ক্ষুব্ধ ছিলেন কাদের সিদ্দিকী। গত জুলাইয়ে ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা দেন তিনি।

এদিন গাইবান্ধা পৌর শহীদ মিনার চত্বরে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের জেলা সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে নিয়ে এভাবে সমালোচনার তীর ছুড়লেন তিনি।

গাইবান্ধা জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের আহ্বায়ক মোস্তফা মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, কেন্দ্রীয় নেতা মঞ্জুরুল আলম প্রমুখ।

পরে মোস্তফা মনিরুজ্জামানকে সভাপতি ও আবু বক্কর সিদ্দিককে সাধারণ সম্পাদক করে ৬৯ সদস্য বিশিষ্ট গাইবান্ধা এ দলের জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়।

পালাবদল/এমএম

 


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]