প্রতিরক্ষা
অর্থ সংকট: যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভারতের নেভাল গান কেনা আটকে যাচ্ছে
অর্থ সংকট: যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভারতের নেভাল গান কেনা আটকে যাচ্ছে





পালাবদল ডেস্ক
Friday, Nov 22, 2019, 4:18 pm
Update: 22.11.2019, 4:20:23 pm
 @palabadalnet

ভারতীয় যুদ্ধজাহাজের কামানের জন্য কয়েক মাস আগে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অনুরোধ করেছিলো ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। যুক্তরাষ্ট্র সরকার এ ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিয়েছে। এই চুক্তি হবে ২০১৮ সালের এপ্রিল থেকে ভারত যে ১৫ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র চুক্তি করেছে তার অতিরিক্ত। কিন্তু দিল্লিভিত্তিক ইন্সটিটিউট ফর ডিফেন্স স্টাডিজ এন্ড এনালাইসিসে’র রিসার্স ফেলো লক্ষণ কুমার বেহেরা মনে করেন, বাহিনীটিকে যে বার্ষিক বাজেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে তা দিয়ে চুক্তিকৃত অস্ত্রের মূল্য পরিশোধ করা যাবে না।

তিনি বলেন, প্রতিবছর ১৫% বর্ধিত চাহিদা মিটিয়ে ২০১৮ সালের এপ্রিল থেকে সই হওয়া চুক্তির অর্থ পরিশোধের জন্য বাড়তি ২.৫ বিলিয়ন ডলার লাগবে। কিন্তু কোন বাড়তি বাজেট পাওয়া যাবে বলে মনে হচ্ছে না।

২০১২-১৩ সালে নৌবাহিনীর বাজেট যেখানে ছিল প্রতিরক্ষা বাজেটের ১৮% সেখানে তা ২০১৯-২০ সালে ১৩.৬৬%-এ নেমে আসায় এই উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। সম্পদের ভয়াবহ সংকট থাকার পরও ২০১৮ সালের এপ্রিল থেকে প্রায় ১৭ বিলিয়ন ডলার মূল্যের চুক্তি সই করছে প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয়।

বেহেরা বলেন, ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনী এখন ব্যাপক আধুনিকায়নের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। সম্পদ সংকোচনের কারণে তার চুক্তি অনুযায়ী পরিশোধের সক্ষমতায় বড় ধরনের টানাপোড়ন তৈরি হয়েছে। অর্থের সংকট এতটাই যে তাদের পক্ষে আগে করা চুক্তির অর্থ পরিশোধও কঠিন হয়ে গেছে।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসন ভারতীয় নৌবাহিনীর জন্য ১.০২ বিলিয়ন ডলারের নেভাল গান ও অন্যান্য সরঞ্জাম বিক্রি অনুমোদন করে। বিষয়টি কংগ্রেসকে অবহিত করা হয়েছে বলে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়। এর মধ্যে ১৩টি এমকে ৪৫ নেভাল গান এবং ৩,৫০০ ডি৩৪৯ প্রজেক্টাইল ও এমকে ৯২ গোলা রয়েছে।

বেহেরা বলেন, সম্পদের সহজলভ্যতা নিয়ে গোজামিল দেয়া পূর্বাভাসের কারণে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তার আধুনিকায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে কঠিন অবস্থায় পড়েছে।

গত মাসে নৌ কমান্ডারদের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল করমবীর সিং অর্থ সংকটের বিষয়টি উত্থাপন করেন। অন্য নেভাল অফিসাররাও বিভিন্ন বৈঠকে বিষয়টি তুলছেন।

সেপ্টেম্বরে নৌবাহিনীর উপ-প্রধান জি অশোক কুমার বলেন, আমাদেরকে অবশ্যই আরো অর্থ চাইতে হবে কারণ এই বাজেট দিয়ে আমাদের প্রত্যাশা পূরণ হচ্ছে না। সূত্র: স্পুটনিক

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]