লাইফস্টাইল
এই ৭ খাবার ভুলেও মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না
এই ৭ খাবার ভুলেও মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না





পালাবদল ডেস্ক
Sunday, Oct 18, 2020, 1:10 am
Update: 18.10.2020, 1:57:11 am
 @palabadalnet

চটজলদি খাবার গরম করতে সবসময়ই আমাদের ভরসা মাইক্রোওয়েভ। বাইরে থেকে খাবার কিনে আনলে বা ফ্রিজের কোনো খাবার গরম করতে চাইলে সোজা চালান করে দেওয়া হয় মাইক্রোওয়েভে। বর্তমানের কর্মব্যস্ত জীবনে সবারই সময়ের বড়ই অভাব। সবাই ছুটতেই ব্যস্ত। সেই সঙ্গে কমেছে ধৈর্য্য। বিশেষত কর্মজীবীদের জীবন এই মাইক্রোওয়েভ ছাড়া অচল। সবাই ভাবেন যেকোনো খাবারই সহজে মাইক্রোওভেনে গরম করা যায়। কিন্তু এই নিয়ম সবক্ষেত্রে খাটে না। এমন কিছু খাবার আছে, যা মাইক্রোওভেনে গরম করলে তার খাদ্যগুণ নষ্ট হয়ে যায়। তেমনই খাবার খারাপও হয়ে যেতে পারে। দেখে নিন কোন কোন খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না।

প্যাটিস বা পেস্ট্রি: প্যাটিস দ্বিতীয়বার গরম করে খেলে তার স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। একই সমস্যা হয় পেস্ট্রির ক্ষেত্রেও। কারণ যে খাবের বাটার রয়েছে তা কখনই দ্বিতীয়বার খাওয়া উচিত নয়।

পিৎজা: একই সমস্যা পিৎজার ক্ষেত্রেও। দ্বিতীয়বার গরম করে খেলে সেই স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। পিৎজার ব্রেড শক্ত হয়ে যায়। এছাড়াও চিজ, অলিভ ইত্যাদির স্বাদ নষ্ট হয়। দুধের তৈরি যে কোনো প্রোডাক্টই দ্বিতীয়বার গরম করা উচিত নয়।

বার্গার: পাঁউরুটি যখন তৈরি করা হয় তখন তা এমনই খুব ভালো করে সেঁকা হয়। এরপর সেই রুটি দিয়ে বার্গার বানানো হয়। কিন্তু একবার তৈরি হওয়ার পর দোকান থেকে বাড়িতে এনে তা যদি আবার গরম করা হয় তাহলে তা শক্ত হয়ে যায়। এছাড়াও দোকান থেকে পরিবেশ করার সময় তা গরম করা হয়। এই বারবার গরম করার ফলে বার্গারের মধ্যে থাকা মাখন, মাংস, লেটুস ইত্যাদির খাদ্যগুণ নষ্ট হয়ে যায়।

ডিমের তৈরি কিছু:  ডিম মেশানো নেই, কিন্তু ভেতরে ডিম দেওয়া এরকম কোনো খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না। কেক চলতে পারে। কিন্তু ডেভিল, এগরোল কিংবা ডিম কষা মাইক্রোওভেনে দেবেন না।

মাছ:  মাছ যেদিন রান্না করবেন সেদিনই চেষ্টা করবেন খেয়ে ফেলার। না খেতে পারলে তা গ্যাসে গরম করুন, কিন্তু মাইক্রোওভেনে নয়। কারণ এতে মাছের খাদ্যগুণ পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যায়। তাই টাটকা মাছ রান্না করে খেয়ে ফেলুন। কিন্তু ইলিশ ভাপা মাইক্রোওয়েভে বানাতে কোনো সমস্যা নেই। তবে দুপুরে খাওয়া হলে রাতে আবার গরম করতে মাইক্রোওভেনে দেবেন না।

দুধের কোনো খাবার: দুধ ভুলেও মাইক্রোওভেনে দেবেন না। এছাড়াও পায়েস, কোনো মালাই এর পদ, চিজ-মাখন দেওয়া কিছু কিংবা মিল্ক শেক কখনই মাইক্রোওভেনে দেবেন না। এতে হিতে বিপরীত হবে। সব ফেটে ভেতরে ছড়িয়ে যাবে। যেখান থেকে শট সার্কিট হতে পারে। সেই সঙ্গে খাদ্যগুণ কিছুই আর অবশিষ্ট থাকবে না। এমনকী খাবার নষ্টও হয়ে যেতে পারে।

পালাবদল/এসএ


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]