অর্থ-বাণিজ্য
সোমবারও বেনাপোল বন্দর দিয়ে কোনো পেঁয়াজ আমদানি হয়নি
সোমবারও বেনাপোল বন্দর দিয়ে কোনো পেঁয়াজ আমদানি হয়নি





রাশেদুর রহমান রাশু, বেনাপোল প্রতিনিধি
Tuesday, Sep 22, 2020, 1:56 am
 @palabadalnet

বেনাপোল: ভারত সরকার বন্দর এলাকায় আটকে থাকা পেঁয়াজ রফতানির নোটিফিকেশন জারি করলেও বেনাপোলের বিপরীতে পেট্রাপোল বন্দরে পূর্বের গেটপাশ করা কোনো পেঁয়াজের গাড়ি না থাকায়  গতকাল সোমবার পেঁয়াজের কোনো গাড়ি বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেনি। 
তবে ওপারের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে বনগাঁর বিভিন্ন রাস্তায় বিভিন্ন প্রদেশে থেকে আসা ১১২টি পেঁয়াজ বোঝাই গাড়ি দাঁড়িয়ে আছে। নতুন গেটপাশে যদি পেঁয়াজ রফতানির নির্দেশনা আসে তাহলে এসব পেঁয়াজ বোঝাই গাড়ি বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করবে। আগে আসা পিয়াজের গাড়িগুলো বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করার অনুমতি না পাওয়ায় বৃহস্পতিবার গাড়ি গুলো সব ফিরে যায়  ভারতের বিভিন্ন এলাকায়। এসব ট্রাকের পেঁয়াজে পচন ধরতে শুরু করায় অনেকে এসব পেঁয়াজ খোলা বাজারে বিক্রি করছেন।

শার্শার পেঁয়াজ আমদানিকারক রফিকুল ইসলাম রয়েল বলেন, ৭৪০ মেট্রিক টন পেঁয়াজের এলসি দেওয়া আছে গত সোমবার মাত্র এক ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। বাকি পিয়াজ কবে ঢুকবে বা ঢুকবে কিনা তা এখনো সঠিকভাবে বলতে পারছি না। আমরা এসব এলসি নিয়ে খুব আতঙ্কের মধ্যে আছি।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের কার্গো সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রাকিব বলেন, ১৪ সেপ্টেম্বর সোমবার যখন পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিল ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় তখন পেট্রাপোল বন্দরে পেঁয়াজ বোঝাই ৫টি ট্রাক ছিল। একটি ট্রাকের গেট পাশ সম্পন্ন থাকলেও অন্য ৪টির গেট পাশ সম্পন্ন ছিল না। এছাড়া বনগাঁ অঞ্চলে আরও ৩৯টি ট্রাক এবং ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে এসে রানাঘাট রেলস্টেশনে ৩টি ট্রেনে ১২৬টি ওয়াগন পেঁয়াজ নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ছিল। ওয়াগনের এসব পেঁয়াজ পেট্রাপোল, ঘুজাডাঙ্গা ও মুহদিপুর বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল। পূর্বের গেট পাশ না থাকায় শনিবার , রোববার ও সোমবার ভারত থেকে বেনাপোল বন্দরে কোনো পেঁয়াজ আমদানি হয়নি।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজেদুর রহমান বলেন, নিষেধাজ্ঞায় আটকে পড়া পেঁয়াজের একটি অংশ ভারত সরকার ছেড়ে দেয়ার সম্মতি দিলেও শনিবার, রোববার ও সোমবার বেনাপোলে কোনো পেঁয়াজের ট্রাক আসেনি। কবে নাগাদ আসবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ওপারের রফতানিকারকরা। তিনি আরো বলেন, শুক্রবার ভারতের সিবিআইসি যে নির্দেশনা দিয়েছিল শনিবার সকালে পেট্রাপোল কাস্টমকে তারা আরো একটি নির্দেশনা দিয়েছে। ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছে, গত সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বন্দর এলাকার যেসব পেঁয়াজের ট্রাকের লোড এক্সপোর্ট (লিইও) করা ছিল শুধুমাত্র সেই ট্রাকগুলো বাংলাদেশে যাবে। তবে পেট্রাপোল বন্দর অভ্যন্তরে পাঁচটি পেঁয়াজের ট্রাক ছিল। এর মধ্যে একটি ট্রাকের লিইও করা ছিল। পেঁয়াজে পচন ধরায় বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রফতারিকারক সেই পেঁয়াজের লিইও বাতিল করে। 

তিনি আরো বলেন, রোববার রাতে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে থেকে ১১২টি পেঁয়াজের গাড়ি বনগাঁয় এসে পৌঁছেছে। এই গাড়িগুলো বনগাঁর বিভিন্ন রাস্তায় অবস্থান করছে নতুন করে পেঁয়াজ রফতানি অনুমতি পেলে এসব পিয়াজের গাড়ি গুলো হয়তো বেনাপোল বন্দর দিয়ে প্রবেশ করতে পারে।  সোমবার ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সাথে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষের বৈঠক হয়েছে তবে বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত না হ ওয়ায় আজও বেনাপোল বন্দর দিয়ে কোনো পেঁয়াজের গাড়ি প্রবেশ করেনি।

বাংলাদেশের আমদানিকারকদের দাবি ও সরকারি তৎপরতায় ১৫ সেপ্টেম্বর ভারতের রফতানিকারকরা পেঁয়াজ রফতানির আবেদন জানান। তারই প্রেক্ষিতে ১৮ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রফতানির অনুমতি দেয় ভারতের কেন্দ্রীয় শুল্ক অধিদফতর। তবে গত শনিবার সকালে বন্দর এলাকার যেসব পেঁয়াজের ট্রাকের লোড এক্সপোর্ট (লিইও) করা ছিল শুধুমাত্র সেই ট্রাকগুলো বাংলাদেশে যাবে এমন নির্দেশনা দেয়ার পর এই জটিলতা তৈরি হয়। পেট্রাপোল বন্দরে পূর্বের লিও নেওয়া কোন পেঁয়াজের গাড়ি না থাকায় গত তিন দিনে বেনাপোল বন্দর দিয়ে কোন পেঁয়াজ আমদানি হয়নি। 

বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমের কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা আকসির মোল্লা বলেন, নিয়ম অনুযায়ী ভারত থেকে কোন পণ্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশের সময় কাস্টম থেকে গেটপাশ নিতে হয়। সকাল থেকে ভারতীয় সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের পক্ষ থেকে কোন গেট পাস গ্রহণ না করায় পেঁয়াজের কোনো চালান আসেনি বেনাপোল বন্দরে। কবে আসবে তা নিশ্চিত করে জানানো হয়নি।

বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক মামুন কবির তরফদার বলেন, ভারত থেকে বেনাপোল বন্দরে আজ  ও কোন পেঁয়াজ আমদানি হয়নি। পেঁয়াজ নেওয়ার জন্য আমরা সবসময় প্রস্তুত আছি। 

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]