প্রতিরক্ষা
বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলংকার নৌবাহনীকে শক্তিশালী করছে চীন
বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলংকার নৌবাহনীকে শক্তিশালী করছে চীন





সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট
Saturday, Nov 23, 2019, 4:05 pm
 @palabadalnet

বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলংকার কাছে ফ্রিগেট বিক্রির পাশাপাশি পাকিস্তানে অত্যাধুনিক এন্টি-স্টেলথ রাডার সরবরাহের মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে প্রতিরক্ষা সম্পর্ক আরো জোরদার করছে চীন।

জেনিস ডিফেন্স উইকলির এক খবরে বলা হয় যে তারা স্যাটেলাইট ইমেজের মাধ্যমে পাকিস্তানের মিয়াঁওয়ালী বিমান ঘাঁটিতে চীনের তৈরি জেওয়াই-২৭এ কাউন্টার-ভেরি-লো-অবসারভেবল রাডার শনাক্ত করতে পেরেছে। গত ২৯ আগস্ট স্যাটেলাইট ওই ছবি তোলে।
 
ত্রি-মাত্রিক, দূর পাল্লার এই রাডার ৫০০ কিলোমিটার দূর থেকে এফ-২২ র‌্যাপ্টরের মতো স্টেলথ জঙ্গিবিমান শনাক্ত করতে সক্ষম। এই রাডারের একটিভ ফেজড এরে এন্টেনা ভিএইচএফ তরঙ্গ ব্যবহার করে। স্থল বা সচল কোন যানে এই রাডার স্থাপন করা যায়। এটা জ্যাম প্রতিরোধক। কোন আগত জঙ্গিবিমানকে ঘায়েল করার জন্য এটা সারফেস-টু-এয়ার ক্ষেপনাস্ত্রকেও পথ দেখিয়ে নিয়ে যেতে পারে।

পাকিস্তানের বিমান ঘাঁটিতে ৫ জুন থেকে ২৯ আগস্টের মধ্যে কোন এক সময়ে এই রাডারের আগমণ ঘটে। তবে ২ সেপ্টেম্বরের আগে রাডারটি পুরোপুরি সক্রিয় করা হয়নি বলে জেনিস জানিয়েছে।

পাকিস্তান বা চীন কারো পক্ষ থেকেই জেওয়াই-২৭এ কেনা-বেচার কথা প্রকাশ করা হয়নি। তবে দুই দেশের কর্মকর্তারা চলতি মাসের গোড়ার দিকে সাংহাই শিপইয়ার্ডে আয়োজিত পাকিস্তানের জন্য দ্বিতীয় ব্যাচের টাইপ ০৫৪এ গাইডেড মিসাইল ফ্রিগেট তৈরির স্টিল কাটিং অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

শিপইয়ার্ডে পাকিস্তানের জন্য তৃতীয় ও চতুর্থ ফ্রিগেট তৈরি হচ্ছে। প্রথম দুটির নির্মাণ শুরু হয়েছে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে এবং এগুলো ২০২১ সালে পাকিস্তানের হাতে পৌছার কথা।

২০০৭ সাল থেকেই চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি নেভির মূল শক্তি এই টাইপ ০৫৪এ ফ্রিগেট। পাকিস্তান নৌবাহিনীর হাতে চারটি এফ২২পি ফ্রিগেট রয়েছে। এর মধ্যে তিনটিই চীনের তৈরি।

সাংহাইভিত্তিক মিলিটারি কমান্ডার শি লাও বলেন, ভারতীয় নৌবাহিনীর কাছ থেকে সম্ভাব্য শত্রুতামূলক আচরণ বিবেচনা করা হলে এগুলোর মাধ্যমে পাকিস্তান নৌবাহিনী আরো ভালোভাবে সজ্জিত হতে পারবে।

এদিকে গত সপ্তাহে সৌখিন কারো তোলা ছবিতে দেখা গেছে যে চীনা নৌবাহিনী থেকে সদ্য অবসর নেয়া দুটি টাইপ ০৫৩এইচ৩ ফ্রিগেট –  পুতিয়ান ও নিয়ানইউনগ্যাং সাংহাইতে মেরামত ও রং দেয়ার কাজ করা হচ্ছে বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে সরবরাহের জন্য। বাংলাদেশ এগুলো কিনেছে এবং চলতি বছরের শেষ দিকে এগুলো হস্তান্তর করা হতে পারে।


শ্রীলংকা নৌবাহিনীকে একটি টাইপ ০৫৩এইচ২জি ফ্রিগেট ‘তংলিং’ উপহার দিয়েছে চীন। এর নতুন নামকরণ করা হয়েছে পরাক্রমবাহু এবং গত আগস্টে কলম্বোতে এর কমিশনিং করা হয়। ফলে ভারত মহাসাগরে চীনের তৈরি যুদ্ধ জাহাজের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে চীনের সামরিক সম্পর্ক জোরদার করা অনেক দিন ধরেই ভারতের জন্য উদ্বেগের কারণ হয়ে আছে। ভারতীয় বিশ্লেষকদের ‘মুক্তা মালা তত্ত্ব’ অনুযায়ী প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করে ভারতকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলার চেষ্টা করছে চীন।

সাংহাই মিউনিসিপ্যাল সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের দক্ষিণ এশিয়া বিশেষজ্ঞ ওয়াং দেহুয়া বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে চীনের সামরিক সহযোগিতা নতুন কোন বিষয় নয়। দশকের পর দশক ধরে চলছে।

পাকিস্তানসহ অন্যান্য দেশকে চীন যেসব অস্ত্র সরবরাহ করছে তা ভারতের জন্য হুমকি তৈরি করবে বলে ওয়াং মনে করেন না। কারণ ভারতের হাতে যেসব অস্ত্র রয়েছে তার সঙ্গে তাল মেলানোর সামর্থ্য এসব দেশের নেই।

তাছাড়া শ্রীলংকা ও বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সামরিক সম্পর্ক খুবই জোরদার এবং অনেক বেশি টেকসই।

তার মতে দক্ষিণ এশিয়াকে নিজের আঙ্গিনা মনে করে বলেই চীনের উপস্থিতি নিয়ে ভারতের এই ভয়। এ ধরনের মানসিকতা পরিহার করার পরামর্শ দেন তিনি।

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]