শিল্প-সাহিত্য
হুমায়ন হাসানের কবিতা
হুমায়ন হাসানের কবিতা





Tuesday, Nov 17, 2020, 1:26 am
 @palabadalnet

নদীশূন্য জীবন

একটি সূর্য উঠেছিলো দুটি আকাশ 
আলোকিত করে। দুইটি আকাশ ছিলো দুটি পৃথিবীতে
একটি মেঘাবৃত অপরটি ছিলো রৌদ্রের।
সেটা অনেক আগেকার কথা-
আমার পৃথিবীতে এখন আর কোনো ছাউনি নেই।

আকাশে মেঘের কারণে বৃষ্টি হলো, কিংবা হলোই না-
অতিবৃষ্টিতে মানুষের সুখের সমস্ত ভেসে গেলো বন্যায়,
আর যে-আকাশে রোদ ছিলো সেই পৃথিবীজুড়ে খরার
দুর্ভোগ। মাটি ফেটে-ফেটে বিরান বন্ধ্যা প্রান্তরে ছড়িয়ে
গেলো দুঃখকষ্টের নকশা। 
একে-একে মরে যেতে থাকে নদীরা, 
এবং একদিন নদীশূন্য হয়ে যাবে মানবজীবন।

জোছনার কোমল আলো ছিলো না কোথাও, তাই
রুষ্ট ভালোবাসা কিভাবে গলেছিলো চুম্বনে দেখি নাই।
একবার মরেছি আমি জলে ডুবে, একবার খরায়
সেইসব অনেক আগেকার করা-

আমার পৃথিবীতে এখন আর কোনো নদী নাই।
নাই জোয়ার নাই ভাটা, তবু জীবন তো থেমে নেই
অলীক এক মানুষ আমি ভেসে যাচ্ছি যেদিকে খুশি।
দূরের আকাশে সূর্যটি নিভে যাবার পর আমি এখন অন্ধ
না-প্রেমিক না-প্রেম কাউকেই আর দেখতে পাচ্ছি না।


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2020
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১, সিদ্ধেশ্বরী রোড, রমনা, ঢাকা-১২১৭
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৫১, সিদ্ধেশ্বরী রোড, রমনা, ঢাকা-১২১৭
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]