সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
 
দক্ষিণ এশিয়া
ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বুলবুলের বড় বিপদ কেটেছে
ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বুলবুলের বড় বিপদ কেটেছে





পালাবদল ডেস্ক
Sunday, Nov 10, 2019, 12:31 am
Update: 10.11.2019, 12:33:20 am
 @palabadalnet

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‌‘বুলবুল’-আনন্দবাজার

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‌‘বুলবুল’-আনন্দবাজার

কলকাতা: ‘বুলবুল’নিয়ে রাজ্যবাসীকে অযথা আতঙ্কিত হতে নিষেধ করলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নের কন্ট্রোল রুম থেকে গোটা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন মুখ্যমন্ত্রী। শনিবার রাতে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে মমতা আশ্বস্ত করে বলেন, ‘বুলবুলে বড় বিপদ কেটেছে। অযথা আতঙ্কিত হবেন না।’ আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে দুর্যোগ কেটে যাবে বলে জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। তবে, এখনই লোকজনকে তিনি রাস্তায় বেরোতে নিষেধ করেন।

শনিবার সন্ধে ৭টা নাগাদ দক্ষিণ ২৪ পরগনার সাগরদ্বীপ ও বকখালির মাঝে ১৩০ কিলোমিটার গতিবেগে আছড়ে পড়ে অতি মারাত্মক ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। সুন্দরবনের ব-দ্বীপ অঞ্চল দিয়ে ক্রমে বাংলাদেশের দিকে সরে যাবে এই ঘূর্ণিঝড়। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, রাত ২ টোর পরেই বুলবুলের দুর্যোগ কেটে যাবে। তবে, রোববার বিকেলের পরেই আবহাওয়ার উন্নতি হবে।

নবান্নের কন্ট্রোলরুমে বসে এদিন কলকাতা পুলিশের ড্রোনের প্রশংসা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী জানান, কলকাতা পুলিশের ড্রোন দিয়েই পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা হচ্ছে। তিনি জানান, এই ড্রোনেই ক্ষয়ক্ষতির ওপর সমীক্ষা চালানো হবে।

বুলবুলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে এদিন স্বীকার করে নেন মুখ্যমন্ত্রী। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কাঁথি, রামনগর, খেজুরি-সহ পূর্ব মেদিনীপুরের একাধিক ব্লক। ফসলহানি হয়েছে। বাড়িঘর ভেঙেছে। গাছ উপড়ে পড়েছে। তবে, আগাম লোকজনকে বিভিন্ন ত্রাণ শিবিরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ায়, প্রাণহানি সে অর্থে হয়নি। এখন পর্যন্ত কলকাতায় বালিগঞ্জের সিসিএফসির কাছে গাছ পড়ে এক ব্যক্তির মৃত্যুর খবর মিলেছে।

মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, উপকূল অঞ্চলের ১ লক্ষ ৬৪ হাজার মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মোট ৩১৮টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। এই ত্রাণ শিবিরগুলিতে রয়েছেন ১ লক্ষ ১২ হাজার মানুষ। এ ছাড়া, আয়লার পর একাধিক সাইক্লোন সেন্টার তৈরি করেছিল রাজ্য। সেই সাইক্লোন সেন্টারগুলিতে আশ্রয় নিয়েছেন আরও ২ লক্ষ ৪০ হাজার মানুষ।

দুর্যোগ পুরোপুরি না-কাটা পর্যন্ত দুর্গতারা এইসমস্ত সাইক্লোন সেন্টার ও ত্রাণ শিবিরে থাকবেন। এঁদের খাওয়া-দাওয়ার জন্য ২১৫টি কিচেনও খোলা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, দুর্গতদের দায়িত্ব রাজ্যের।

পালাবদল/এমএ









  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]