সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
 
দক্ষিণ এশিয়া
‘কার্তারপুর মডেল’ ভবিষ্যৎ সঙ্ঘাত নিরসনে সাহায্য করতে পারে: মনমোহন সিং
‘কার্তারপুর মডেল’ ভবিষ্যৎ সঙ্ঘাত নিরসনে সাহায্য করতে পারে: মনমোহন সিং





পিটিআই
Thursday, Nov 7, 2019, 4:11 pm
 @palabadalnet

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বুধবার আশা প্রকাশ করেছেন যে, ভবিষ্যতে সঙ্ঘাত নিরসনের ক্ষেত্রে ‘কার্তারপুর মডেল’ হয়তো সাহায্য করতে পারবে। শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা গুরু নানক দেবের ৫৫০তম জন্ম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে পাঞ্জাব অ্যাসেম্বলির বিশেষ অধিবেশনে দেয়া বক্তৃতায় এ আশার কথা জানান মনমোহন সিং। ভাইস প্রেসিডেন্ট এম ভেনকাইয়াহ নাইডুও অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন।

ভেনকাইয়াহ নাইডু বলেন, শিখ গুরুর শিক্ষা যদি প্রাত্যহিক জীবনে কাজে লাগানো যায়, তাহলে শান্তি ও টেকসই উন্নয়নের নতুন বিশ্ব প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বলেন, “সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের জন্য শান্তি ও সমঝোতাই একমাত্র পথ। সঙ্ঘাতের স্থায়ী সমাধানের জন্য ভবিষ্যতেও হয়তো কার্তারপুর মডেলকে অনুসরণ করা যাবে”।

৯ নভেম্বর কার্তারপুর করিডোর খুলে দেয়া হবে। পাকিস্তানের ভেতরে অবস্থিত গুরুদুয়ারা দরকার সাহিব – যেখানে গুরু নানক দেবের সমাধি রয়েছে – সেটার সাথে এই করিডোরের মাধ্যমে ভারতের পাঞ্জাবের গুরুদাসপুরের দেরা বাবা নানক সংযুক্ত হবে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী আরও আবেদন জানিয়েছেন যাতে সাম্যের সমাজ গঠনের জন্য গুরুর প্রচারিত ভালোবাসা ও শ্রদ্ধার বার্তাটি এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

সিং বলেন, “গুরু নানক দেব যে একক প্রভু, ধর্মীয় সহিষ্ণুতা ও শান্তির চিরন্তন বার্তা দিয়েছেন, সেটা বিচ্ছিন্নতাবাদী সহিংসতাকে নির্মূল করতে পারে”। বিশ্বে এখন এটা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সিং আরও বলেন, “পাঞ্জাব গুরু নানক দেবজির কর্মভূমি। কিভাবে আমরা গুরু নানক দেবজির ধারাবাহিকতা ধরে রাখবো যদি তরুণরা মাদকের মধ্যে হারিয়ে যায়, পানি বিষাক্ত হয়ে যায় আর নারীদের অসম্মান করা হয়। তার ৫৫০তম জন্ম বার্ষিকীতে এটা হলো সবচেয়ে জরুরি প্রশ্ন”।

অধিবেশনে বক্তৃতাকালে ভাইস প্রেসিডেন্ট শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠাতাকে ভারতের সবচেয়ে গণতান্ত্রিক আধ্যাত্মিক নেতাদের একজন হিসেবে উল্লেখ করেন।

নাইডু বলেন, “পাঁচ শতক আগে তার দৃষ্টিভঙ্গি যেমন প্রাসঙ্গিক ছিল, এখনই সেটা একই রকম প্রাসঙ্গিক রয়ে গেছে”।

নাইডি তার বক্তৃতা পাঞ্জাবি ভাষায় দেয়া শুরু করেন। তিনি বলেন, “গুরু নানক জি ভারতের সেই সব দূরদৃষ্টিসম্পন্ন আধ্যাত্মিক নেতাদের একজন যারা মানবতার অস্তিত্বকে আলোকিত করেছে এবং দেশের সাংস্কৃতিক রাজধানীকে সমৃদ্ধ করেছে”।

তিনি বলেন, প্রথম শিখ গুরুর কাছে বর্ণ, জাত, ধর্ম ও ভাষার পার্থক্য ছিল অপ্রাসঙ্গিক।

নাইডু বলেন, “আমরা যদি এই বার্তাগুলো আমাদের প্রতিদিনের জীবনে আত্মস্থ ও সমন্বিত করতে পারি, তাহলে নিশ্চিতভাবে আমরা শান্তি ও টেকসই উন্নয়নের একটা নতুন বিশ্ব গড়ে তুলতে পারবো”।

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]