সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
 
সারাবাংলা
মুক্তাগাছা ইউএনও’র সাবেক সিএ ইয়াকুবের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ
মুক্তাগাছা ইউএনও’র সাবেক সিএ ইয়াকুবের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ





হেলাল উদ্দিন নয়ন
Wednesday, Nov 6, 2019, 5:46 pm
 @palabadalnet

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সাবেক সিএ মোঃ ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন হাট-বাজারের ইজারার ১ কোটি ৯ লক্ষ টাকা আত্মসাতসহ ভুয়া ঠিকানায় চাকরি নেয়ার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) পুনঃতদন্তের নির্দেশ দিয়েছে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ময়মনসিংহকে। এর আগে দুইবার তদন্ত প্রতিবেদন দিলেও দুদক সন্তোষ্ট হতে না পেরে এ আদেশ দেয়। 

অভিযোগে জানা যায়, মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাবেক সিএ মোঃ ইয়াকুব আলী ১৪১৬ থেকে ১৪২০ বাংলা সনে মুক্তাগাছায় কর্মরত ছিলেন। এসময় যথারীতি উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের ইজারা দেয়া হয়। ইজারার টাকা ইজারাদারদের ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে ইউএনও অফিসে জমা দেওয়ার বাধ্যবাধকতা থাকলেও ইয়াকুব আলী তাদের কাছ থেকে নগদ টাকা গ্রহণ করে নিজে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে ব্যাংকে জমা দিতেন। পরে নিজের কাছে থাকা ট্রেজারি চালানে উল্লেখিত টাকার অংক পরিবর্তনের মাধ্যমে রাজস্ব খাতেরিএক কোটি ৯ লাখ টাকার বেশি আত্মসাৎ করেন। 

এছাড়াও তিনি মুক্তাগাছার স্থায়ী বাসিন্দা হলেও জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে স্টেনো স্টাইপিস্ট পদে চাকরি নেন। সেখানে কিছুদিন চাকরি করার পর ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা ও ফুলবাড়িয়ায় চাকরি করেন। এর মধ্যে টানা ১১ বছর নিজ উপজেলা মুক্তাগাছায় চাকরির সুবাদে তিনি ইউএনও অফিসে রামরাজত্ব কায়েম করেন। বর্তমানে মোঃ ইয়াকুব আলী ত্রিশাল উপজেলার ইউএনও’র সিএ কাম ইউডি হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।  

মুক্তাগাছা উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ আইয়ুব খান দুর্নীতিদমন কমিশনে (দুদক) সিএ মোঃ ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে বাংলা ১৪১৬-১৪২০ সনে মুক্তাগাছার বিভিন্ন হাট-বাজারের ইজারার টাকা থেকে এক কোটি ৯ লাখ টাকা আত্মসাতসহ ভুয়া ঠিকানায় চাকরি নেয়ার অভিযোগ দায়ের করেন। 

অভিযোগটি আমলে নিয়ে অনুসন্ধান করার জন্য সমন্বিত জেলা কার্যালয় দুদক, ময়মনসিংহর তৎকালীন সহকারী পরিচালক নুরে আলমকে দায়িত্ব দেয় দুদক। তদন্ত কর্মকর্তা অভিযোগকারী আইয়ুব খান কর্তৃক সংযুক্ত প্রমানাদি মুক্তাগাছা ইউএনও অফিস থেকে গায়েব হয়ে যাওয়ায় অনুসন্ধানে ফলাফল পাওয়া যায়নি বলে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। পরবর্তীতে কমিশন থেকে সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমকে দায়িত্ব দেয়া হলে তিনিও দলিল পত্রাদি গায়েব হওয়ার কারণে তদন্তে অগ্রগতি করতে পারেননি। 

গত ১৩ অক্টোবর দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) অভিযোগকারী মোঃ আইয়ুব খানকে ঢাকা সেগুন বাগিচায় দুদক কার্যালয়ে তলব করে শুনানী করেন। এসময় মোঃ আইয়ুব খান অভিযোগগুলোর যথার্থতা তুলে ধরেন। শুনানী শেষে দুর্নীতি দমন কমিশন ময়মনসিংহ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের (সজেকা) উপ-পরিচালক মোঃ ফারুক আহমেদকে তদন্তের দায়িত্ব দেন। 

অভিযোগকারী মোঃ আইয়ুব খান পালাবদল ডটনেটকে বলেন, সিএ মোঃ ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন হাট-বাজার ইজারার টাকা ট্রেজারি চালানে টেম্পারিং করে কোটি টাকার বেশি আত্মসাৎ করেছেন। এছাড়াও সরকারি বিভিন্ন আয় খাতের হিসাবপত্র তার তত্ত্বাবধানে ছিল। এসব খাত থেকেও তিনি সরকারি টাকা আত্মসাৎ করে টাকার কুমির হয়েছেন। প্রাথমিক দুটি তদন্তের সময় মোঃ ইয়াকুব আলী মুক্তাগাছা ইউএনও অফিসে কর্মরত ছিলেন। বিপদ আঁচ করতে পেরে তার তত্ত্বাবধানে থাকা ট্রেজারি চালানের কপিগুলো তিনি সরিয়ে ফেলেন। তদন্ত কর্মকর্তারা ট্রেজারি চালানের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি ওইসব কাগজপত্র আগের সিএ সরিয়ে ফেলেছেন বলে দায় চাপায়। তিনি আরো বলেন, ইউএনও অফিসে ট্রেজারি চালানের কপি না পাওয়া গেলেও তার একটি কপি ব্যাংকে রক্ষিত আছে। সেখানে খোঁজ-খবর নিলেই এসব পাওয়া যাবে। আসলে সত্য উদঘাটনে তদন্ত কর্মকর্তার সদিচ্ছা থাকাটা জরুরি।

মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুবর্ণা সরকার বুধবার দুপুরে পালাবদল ডটনেটকে জানান, গত ২৯ অক্টোবর সমন্বিত জেলা কার্যালয় (দুদক) ময়মনসিংহের উপ-পরিচালক মোঃ ফারুক আহমেদ অত্র কার্যালয়ের সাবেক সিএ মোঃ ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে সরকারি টাকা আত্মসাতের বিষয়ে তদন্ত করতে এসেছিলেন। 

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]