বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯ ২৯ কার্তিক ১৪২৬
 
অর্থ-বাণিজ্য
ভারতকে ছাড়াই এগিয়ে যাচ্ছে এশিয়ার বৃহত্তম বাণিজ্য চুক্তি
ভারতকে ছাড়াই এগিয়ে যাচ্ছে এশিয়ার বৃহত্তম বাণিজ্য চুক্তি





ব্লুমবার্গ
Wednesday, Nov 6, 2019, 1:32 am
 @palabadalnet

এশিয়ার অধিকাংশ দেশকে অন্তর্ভুক্ত করে যে বাণিজ্য চুক্তি হতে যাচ্ছে, সেখান থেকে নিজেদের সরিয়ে নিয়েছে ভারত। ফলে বাকি ১৫টি দেশ ভারতকে বাদ দিয়েই চীনের পৃষ্ঠপোষকতায় আগামী বছর এই চুক্তি স্বাক্ষর করতে যাচ্ছে।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা বিজয় ঠাকুর সিং সোমবার ব্যাংককে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন যে, রিজিওনাল কম্প্রিহেনসিভ ইকোনমিক পার্টনারশিপ বা আরসিইপি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি উল্লেখ করেছেন যে, সকল ভারতীয় বিশেষ করে সমাজের স্পর্শকাতর ও দরিদ্র মানুষের উপর এর যে প্রভাব পড়বে, সেটা বিবেচনা করেই চুক্তি থেকে সরে গেছে ভারত।

তিনি আরও বলেন, “ভারতের মূল স্বার্থের বেশ কিছু ইস্যু রয়েছে, যেগুলোর কোন সমাধান হয়নি। ভারত সৎ উদ্দেশ্য নিয়ে আরসিইপি আলোচনায় অংশ নিয়েছিল এবং নিজেদের স্বার্থের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে তারা দর কষাকষিতে অংশ নিয়েছে। জাতীয় স্বার্থে আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি”।

সোমবার এক কর্মকর্তা নয়াদিল্লীতে সাংবাদিকদের বলেছেন যে, সেবা খাতের কর্মী ও কৃষকদের সুরক্ষার জন্য মোদি এই চুক্তিতে অংশ নেয়া থেকে বিরত থেকেছেন। ভারতের যে ঘাটতি রয়েছে সেটি বিবেচনার জন্য ভারত অন্য ১৫টি দেশকে বোঝানোর চেষ্টা করেছে এবং ভারতের সেবাখাতের জনশক্তি ও বিনিয়োগের জন্য তাদের বাজার খুলে দেয়ার কথা বলেছে।

ভারত এই চুক্তির সাথে যুক্ত হলে এই চুক্তির অধীনে বিশ্বের মোট বাণিজ্যের এক তৃতীয়াংশ চলে আসতো। ব্যাংকক বৈঠকে – যেখানে এশিয়ার নেতারা এই বড় ঘোষণা দেয়ার অপেক্ষায় ছিলেন – সেখানে ভারত শেষ মুহূর্তে তাদের দাবি জানানোর কারণে অন্য দেশগুলো বিরক্ত হয়েছে।

চীন এই চুক্তিটি দ্রুত করতে চেয়েছে কারণ যুক্তরাষ্ট্রের সাথে বাণিজ্য যুদ্ধের কারণে তাদের অর্থনীতির গতি কমে গেছে। ২০১৭ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র ট্রান্স-প্যাসিফিক পার্টনারশিপ চুক্তি থেকে বেরিয়ে যায়। এই চুক্তি এশিয়ার অর্থনীতিগুলোকে চীনের সাথে আরও বেশি সংযুক্ত করবে যদিও ট্রাম্প প্রশাসন এশিয়ান দেশগুলোর প্রতি জোর দাবি জানিয়েছে যাতে তারা চীনা অবকাঠামো ঋণ ও ৫জি প্রযুক্তি এড়িয়ে চলে।

যুক্তরাষ্ট্র আরসিইপি’র গুরুত্বকে খাটো করে দেখার চেষ্টা করছে। মার্কিন বাণিজ্য মন্ত্রী উইলবার রস ব্লুমবার্গকে বলেছেন যে, এটা “তেমন একটা চুক্তি নয়’। ট্রাম্প টানা দ্বিতীয় বছরের মতো বার্ষিক বৈঠক এড়িয়ে যাওয়ায় দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার অধিকাংশ নেতারা সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সম্মেলন এড়িয়ে গেছে।

রস এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “এটা কোন মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি নয়, টিপিপির সাথে এটার মিল নেই, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে আমাদের যে আলাদা চুক্তি আছে, সেটার সাথেও এর মিল নেই। তাই, আমি মনে করি না যে, এটাকে অত বড় করে দেখার প্রয়োজন আছে। এটা খুবই নিম্নমানের চুক্তি”।

পালাবদল/এমএম


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]