বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ ২৯ কার্তিক ১৪২৬
 
প্রতিরক্ষা
নতুন রূপ নিচ্ছে পাকিস্তান-তুরস্ক প্রতিরক্ষা সহযোগিতা
নতুন রূপ নিচ্ছে পাকিস্তান-তুরস্ক প্রতিরক্ষা সহযোগিতা





পাকিস্তান অবজারভার
Tuesday, Oct 29, 2019, 1:39 pm
 @palabadalnet

তুরস্কের নিজস্ব তৈরি টি৬২৫ হেলিকপ্টার, যার ক্রেতা হতে পারে পাকিস্তান

তুরস্কের নিজস্ব তৈরি টি৬২৫ হেলিকপ্টার, যার ক্রেতা হতে পারে পাকিস্তান

তুরস্ক ও পাকিস্তান কৌশলগত অংশীদার। তাদের মধ্যে বহুদিন ধরে সামরিক সম্পর্কও রয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান এখন তুরস্কের সবচেয়ে বড় প্রতিরক্ষা অংশীদারেও পরিণত হয়েছে। এর প্রয়োজনীয়তাগুলো নিম্নরূপ:

প্রথমত অস্ত্র ব্যবস্থা: পাকিস্তান খুচরা যন্ত্রাংশ তৈরি করে তুরস্কে সরবরাহ করে। এটা দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা জোরদার এবং শত-বছরের পুরনো সম্পর্ককে দৃঢ় করেছে। একে আধুনিক যুগের প্রয়োজনীয়তার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ করে নতুন মাত্রা দেয়া হয়েছে।
 
গত এক দশক ধরে ড্রোন প্রযুক্তি লাভের চেষ্টা করছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদ সরকারের অসংখ্য প্রতিবাদ সত্ত্বেও এই প্লাটফর্মটি পাকিস্তানের মধ্যে ব্যবহার করছে যুক্তরাষ্ট্র। পাকিস্তান এখন ড্রোনের যন্ত্রাংশ রফতানি শুরু করেছে।

মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা প্রদর্শনী ও মেলায় (আইডিইএফ) তুর্কি ড্রোনের (এএনকেএ) জন্য পাকিস্তান এরোনটিকাল কমপ্লেক্স (পিএসি) কামরায় তৈরি যন্ত্রাংশের প্রথম চালান আনুষ্ঠানিকভাবে টার্কিশ এরোস্পেস ইন্ডাস্ট্রি (টিআইএ)’র কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে টিআইএ’র প্রেসিডেন্ট ও সিইও মুহাররেম দোর্তকাসলি পিএসি কামরা’র অর্জিত দক্ষতা ও জ্ঞানের ব্যাপারে সন্তোষ প্রকাশ করেন। আগামীতে আরো অনেক সহযোগিতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা যাবে বলেও আশাবাদ প্রকাশ করেন টিআইএ প্রধান।

ড্রোন প্রযুক্তি হাসিলের চেষ্টা করে যাচ্ছে পাকিস্তান এবং দেশীয়ভাবে ড্রোন তৈরির চেষ্টা করছে।

পাকিস্তানের তৈরি ৫২টি সুপার মুশাক প্রশিক্ষণ বিমান কিনেছে তুরস্ক। পাকিস্তান এখন এডিএ-ক্লাসভিত্তিক ফ্রিগেটকে মডিফাই করে জিন্নাহ ক্লাস ফ্রিগেট তৈরি করছে। এটা দুই দেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় প্রতিরক্ষা চুক্তি।

এ ধরনের দুটি ফ্রিগেট পাকিস্তানে তৈরি হবে। এগুলো ভিএলএস বহনের মতো বড় এবং এগুলোর ডিসপ্লেসমেন্ট পাকিস্তানে তৈরি ফ্লিট ট্যাঙ্কারের চেয়েও বেশি। ফ্রিগেটগুলো নির্মাণের মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে পাকিস্তান নৌবাহিনী দেশকে আত্মনির্ভরশীল করার ক্ষেত্রে ব্যাপক অগ্রগতি করেছে। তুরস্কের সহযোগিতায় তৈরি যুদ্ধজাহাজ কমিশন করেছে পাকিস্তান। পাকিস্তান নৌবাহিনী এমটিআরপি-৩৩ ব্যবহার করছে। পাকিস্তান নৌবাহিনীর আগস্টা ৯০বি সাবমেরিন আপগ্রেড করছে তুরস্ক। আপগ্রেড করা সাবমেরিনগুলোতে তুরস্কের তৈরি নতুন প্রজন্মের জারগানা টর্পেডো যুক্ত করা হবে।

পালাবদল/এমএম



  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]