শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
 
ধর্ম ও জীবন
পরকালীন পাথেয় অর্জনের এক উৎকৃষ্ট সময় রমজান মাস
পরকালীন পাথেয় অর্জনের এক উৎকৃষ্ট সময় রমজান মাস





মেহেদী হাসান সাকিফ
Friday, May 10, 2019, 3:50 am
 @palabadalnet

ইবাদত-বন্দেগি, জিকির-আজকার, পরকালীন পাথেয় অর্জনের এক উৎকৃষ্ট সময় হচ্ছে রমজান মাস।

এ মাসে বান্দা তার যাবতীয় জাগতিক চাওয়া-পাওয়াকে বিসর্জন দিয়ে আল্লাহর দয়া ও রহমত পেতে ইমানি জিন্দেগি গ্রহণ করবে। আল্লাহর আনুগত্যে নিজেকে সমর্পণ করবে।

প্রিয় নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেন, “কেবল পানাহার থেকে বিরত থাকার নামই সিয়াম নয়; বরং অসাড়তা ও অশ্লীলতা থেকে বিরত থাকার নামই হলো (আসল) সিয়াম। হজরত আবু হুরায়রাহ্ (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি ইমানের সঙ্গে ও সাওয়াব লাভের আশায় রমজান মাসে সিয়াম পালন করবে, তার আগের সব গুনাহ ক্ষমা করে দেয়া হবে। আর যে ব্যক্তি ইমানের সঙ্গে ও সাওয়াব লাভের আশায় ইবাদাতে রাত কাটাবে, তার আগের সব গুনাহ ক্ষমা করে দেয়া হবে। আর যে ব্যক্তি ইমানের সঙ্গে ও সাওয়াব লাভের আশায় লায়লাতুল কদরে ইবাদাতে কাটাবে তারও আগের সব গুনাহ ক্ষমা করা হবে।” (বুখারি, মুসলিম)

রমজান মাস কিন্তু আমাদের পূর্ববর্তী উম্মতগণের জীবনেও ছিল। তখন রমজান মাস এতটা মর্যাদাবান ছিল না। রমজান মাসে পবিত্র কোরআন নাজিল হওয়ায় এ মাসের মর্যাদা বহুগুণে বেড়ে গেছে। নিয়ামত যত মূল্যবান, তার হক আদায় করার দায়িত্বও তত ভারি। আল্লাহর কিতাব সবচেয়ে রহমত ও বরকতের জিনিস। এ কিতাব মানুষের গোপন, প্রকাশ্য, ব্যক্তিগত ও সমষ্টিগত সব ব্যধির ব্যবস্থাপত্র। গভীর অন্ধকারে হাবুডুবু খাওয়া লোকের আলোর মশাল। তাই এ কোরআন নাজিলের মাস মাহে রমজানের প্রধান হক হচ্ছে- কোরআন পড়া, কোরআন বোঝা, কোরআন অনুযায়ী আমল করা ও অন্যকে এর দাওয়াত দেয়া। কোরআন তিলাওয়াতকারীর মর্যাদা বর্ণনা করে রাসূল (সা.) বলেছেন, তোমাদের মধ্যে সেই ব্যক্তি সর্বোত্তম, যে নিজে কোরআন শিখে ও অপরকে তা শেখায় (বুখারি : ৫০২৭)।

রহমতের এই মাসে আল্লাহতায়ালা তার অগণিত বান্দাকে ক্ষমা করে থাকেন। বছরে আর এমন কোনো মাস নেই, যে মাসে আল্লাহপাক তার এত বান্দাকে ক্ষমা করে থাকেন। নবী (সা.) বলেন, ‘রমজানে প্রতি দিন ও রাতে জাহান্নাম থেকে আল্লাহর কাছে বহু বান্দা মুক্তিপ্রাপ্ত হয়ে থাকে’। (আহমাদ : ৭৪৫০)।

রোজায় শয়তানকে বন্দি রাখা হয়। জান্নাতের দরজাগুলো খুলে দেয়া হয়। জাহান্নামের দরজাগুলো বন্ধ করে রাখা হয়। এ প্রভাবে জমিনের ওপরও নেক আমলের বিশেষ আবহ সৃষ্টি হয়। আল্লাহর অনেক বড় নেয়ামত যে, এই রমজান অবধি আমাদের হায়াত দিয়েছেন। আমাদের কত চেনা মুখ যারা গত রমজানেও জীবিত ছিল। আজ তারা কবর দেশের বাসিন্দা। আমাদের কারও জীবনেও হতে পারে এই রমজান আমাদের জীবনের শেষ রমজান। তাই সময়গুলো অবহেলায় না কাটিয়ে বেশি বেশি আল্লাহর বন্দেগি করি।


  এই বিভাগের আরো খবর  
  সর্বশেষ খবর  
  সবচেয়ে বেশি পঠিত  


Copyright © 2019
All rights reserved
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]
সম্পাদক : সরদার ফরিদ আহমদ
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৭৩/৩২ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮-০১৮৫২-০২১৫৩২, ই-মেইল : [email protected]